>
Bengali, ENTERTAIMENT, Entertainment

যে ছবিতে ধরা পড়েছে প্রকৃতির শক্তি

ন্যাচারাল হিস্ট্রি মিউজিয়ামে এর বছরের প্রতিযোগিতার বার্ষিক ওয়াইল্ডলাইফ ফটোগ্রাফার বিশ্বের সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ ফটোগ্রাফি প্রতিযোগিতা অন্যতম. এই বছরের বিজয়ীদের ন্যাচারাল হিস্ট্রি মিউজিয়ামে লন্ডনে গত রাতে ভূষিত করা হয়. এ বছরের ‘ওয়াইল্ড লাইফ ফটোগ্রাফার অফ দ্য ইয়ার’ এর পুরস্কার জিতেছেন টিম ল্যাম্যান৷ এর জন্য অনেক কষ্ট করতে হয়েছে তাঁকে৷ বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে আরও যেসব ছবি জিতেছে সেগুলো :

1. হলদে সবুজ ওরাংওটাং  Entwined Lives, showing a critically endangered Bornean orangutan in the Indonesian rainforest.

winners of the 2016 Wildlife Photographer of the Year awards

এই একটি ছবিতে ৫০ হাজার প্রতিযোগীকে পেছনে ফেলেছেন টিম ল্যাম্যান৷ আর জিতে নিয়েছেন ‘ওয়াইল্ড লাইফ ফটোগ্রাফি অফ দ্য ইয়ারের’ সেরা পুরস্কার৷ ইন্দোনেশিয়ার রেইন ফরেস্টে বিলুপ্ত হতে যাওয়া বোর্নিয়ান ওরাংওটাংয়ের ছবি এটি৷ বেশ কিছুদিন চেষ্টা করে অনেক উঁচু এই গাছটিতে উঠে ক্যামেরা সেট করতে হয়েছে ল্যাম্যানকে৷

 

 

2. কাক আর চাঁদ  “The moon and the crow”, Gideon Knight (UK).

winners-of-the-2016-wildlife-photographer-of-the-year-awards-2

মাত্র ১৬ বছরের তরুণ লণ্ডনবাসী গিডেয়ন নাইট জিতে নিয়েছেন ‘ইয়ং ওয়াইল্ডলাইফ ফটোগ্রাফার অফ দ্য ইয়ারের’ খেতাব৷ তার ইমেজ “চাঁদ এবং কাক” জন্য কম বয়সী প্রতিযোগী জন্য – একটি সামগ্রিক বিজয়ী পুরস্কার বর্ষসেরা তরুণ ওয়াইল্ডলাইফ ফটোগ্রাফার দেওয়া হয়েছিল ৷ তার ছবিতে তেমন বিশেষত্ব না থাকলেও রোমান্টিক ছবিটিতে একটি রহস্য লুকিয়ে আছে, যাতে রূপকথার আভাস পাওয়া যায়৷

 

3. পেঁচার শোক  Winner, Black and White – “Requiem for an owl”, Mats Andersson (Sweden).

winners-of-the-2016-wildlife-photographer

ইউরেশীয় পিগমি পেঁচা, সবে 7 ইঞ্চি লম্বা ইউরোপের ক্ষুদ্রতম পেঁচা হয়৷ সুইডিশ আলোকচিত্রী ম্যাটস অ্যান্ডারসন ‘সাদা-কালো’ ক্যাটাগরিতে পুরস্কারটি জিতেছেন এই ছবির জন্য৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *