Uncategorized

টলিউড কি শিবিরে বিভক্ত? কী মনে করেন কৌশিক সেন?

এবেলা.ইন— আপনার চারপাশে কোনও মার্কাস ব্রুটাস ওরফে ‘জুলফিকার’-এর ‘বসির খান’-কে খুঁজে পান?

কৌশিক সেন— এই ধরনের চরিত্রগুলির মহিমাই এমন যে খুব কাছের মনে হয়েও এরা কাছের নয়। ‘ওথেলো’,‘ম্যাকবেথ’ বা ‘হ্যামলেট’-এর মধ্যে বাস্তবের কোনও চরিত্রকে খুঁজে পাওয়া যেতেই পারে, তা বলে তাঁরা কেউই হুবহু হবে না। এই চরিত্রগুলো আসলে ‘লার্জার দ্যান লাইফ’। রবীন্দ্রনাথের ইতিহাস আশ্রিত চরিত্রগুলি যেমন ‘বিসর্জন’-এর রঘুপতি কিংবা জয় সিংহ— এরা কোথাও চেনা আবার কোথাও গিয়ে অচেনা।

এবলা.ইন— ‘ব্রুটাস’ চরিত্রের জন্য নিজেকে তৈরির করার প্রক্রিয়াটা কী রকম ছিল?

কৌশিক সেন— প্রথমে দেখতে চেয়েছিলাম উইলিয়াম শেক্সপিয়ার-এর দুটো নাটক ‘জুলিয়াস সিজার’এবং ‘অ্যান্টনি অ্যান্ড ক্লিওপেটা’- থেকে চরিত্রগুলোকে নিয়ে সৃজিত কীভাবে কলকাতার বন্দরের অন্ধকার দুনিয়ায় আরোপিত করে। ডক, তাকে ঘিরে ওঠা অপরাধ জগতের সিন্ডিকেট— আর তারই মাঝে ‘ব্রুটাস’ ওরফে ‘বসির খান’, যে আবার খুনি। কিন্তু, তার চেহারায় সেই খুনিকে পাওয়া কঠিন। কারণ তারমধ্যে সবসময়ে একটা চিন্তাশীলতা কাজ করে। সে কবিতা বলে। দেশপ্রেমিক। তাই বসির খান-এর চাহনি, তাঁর হাঁটাচলা, পেশীবহুল চেহারাকে ফুটিয়ে তোলাটি ছিল বড় চ্যালেঞ্জ। রোজ সকালে নিয়মিত জিমে যেতে হয়েছে। ঘরে আটকে থেকে ‘ব্রুটাস’-কে আত্মস্থ করতে হয়েছে।

 

এবেলা.ইন— ‘ব্রুটাস’-এর মতো চরিত্রের অফারটা কীভাবে এসেছিল?

কৌশিক সেন— ‘রাজকাহিনি’-র পরেই সৃজিত একটা ইঙ্গিত দিয়ে রেখেছিল। জানতাম, উইলিয়াম শেক্সপিয়ার নিয়ে একটা কাজ করছে। কিন্তু, খোলসা করেনি। ‘ব্রুটাস’চরিত্র, ‘জুলফিকার’-এ যার নাম‘বসির খান’, সেই চরিত্রে আমাকে নির্বাচিত করার খবরটা যখন সৃজিত দিয়েছিল তখন সত্যিই খুব ভাল লেগেছিল।

আরও জানতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজে!

টলিউড কি শিবিরে বিভক্ত HOME PAGE

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *