Uncategorized

উরি হামলার নিন্দা করতে অস্বীকার করেছিলেন পাক শিল্পীরা !

উরি হামলায় ১৮ জন ভারতীয় সেনার মৃত্যুর পর দেশে পাকিস্তানি শিল্পীদের থাকার বিরুদ্ধে রীতিমতো সোচ্চার হয়েছিল মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনা৷ তারা ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে পাকিস্তানি শিল্পীদের ভারত ছাড়ার হুমকি দেওয়া হয়েছিল তাদের পক্ষ থেকে৷ আর এই ঘটনার পরেই চুপিসারে দেশ ছাড়েন অভিনেতা ফওয়াদ খান৷ ফওয়াদের ভারত ছাড়ার ঘটনায় রীতিমতো আলোড়ন পড়ে গিয়েছ এবং দেশেরই সংবেদনশীল মহলের একাংশ ভাল চোখে দেখেননি৷ এই নিয়ে বহু বিতর্কও তৈরি হয়েছিল৷ ‘শিল্পীর কোনও দেশ হয়না’! এই ধরনের মন্তব্যও ভেসে আসছিল বিভিন্ন মহল থেকে৷

 

পাক ধারাবাহিক সম্প্রচার বন্ধের কথা ভাবছে ‘জি নেটওয়ার্ক’

সেই ঘোষণার পরেই জানালেন ‘জি নেটওয়ার্ক’-এর সর্বেসর্বা সুভাষ চন্দ্র, তাঁরা ‘জিন্দগি টিভি’তে পাক ধারাবাহিকের সম্প্রচার বন্ধ করে দিয়েছেন।পাকিস্তান ধারাবাহিককে এদেশে জনপ্রিয় করেছে ‘জি নেটওয়ার্ক’-এর ‘জিন্দগি টিভি’ এবং জনপ্রিয় হয়েছে ‘জিন্দগি গুলজার হ্যায়’ এবং ‘হামসফর’-এর মতো পাক ধারাবাহিক। এমনকী, ‘হামসফর’ ধারাবাহিকের জনপ্রিয়তাই বলিউডে প্রতিষ্ঠিত করেছে ফওয়াদ খান, মাহিরা খানের মতো পাক শিল্পীদের!

কিন্তু এবার জি নেটওয়ার্কের প্রধাণ জগদীশ চন্দ্রর বক্তব্যে রীতিমতো চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে৷ সম্প্রতি জগদীশ চন্দ্র দাবি করেছেন, উরিতে জঙ্গি হামলার পর উনি ব্যক্তিগতভাবে পাকিস্তানি শিল্পীদের জানিয়েছিলেন গোটা ঘটনার বিরোধিতায় মুখ খোলার জন্য৷ পাশাপাশি, শহিদদের মৃত্যুর ঘটনায় দুঃখপ্রকাশ করার জন্যও অনুরোধ করেছিলেন তিনি৷ কিন্তু আলি জাফর, মাহিরা খান, ফওয়াদ খানের মতো অভিনেতা-অভিনেত্রীরা এই কাজ করতে অস্বীকার করেন৷

 

FawadKhan, mahira khan , ali jafer

এখন প্রশ্ন, শিল্পীদের তো সংবেদনশীল হওয়ার কথা! যে কোনও মৃত্যু তাঁদের মনে গভীর প্রভাব ফেলতে পারে বলেই সকলে মনে করেন৷ তবে কি ভারতীয় সেনাদের মৃত্যু পাক শিল্পীদের মনে কোনওভাবেই প্রভাব ফেলতে পারেনি?

Source

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *